ঘিওর থানা পুলিশের অভিযানে আটক ৬ জুয়াড়িকে জেল হাজতে প্রেরণ

ঢাকা, সারাদেশ, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, 26 বার পড়া হয়েছে,

সুরেশ চন্দ্র রায়, মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি।

মানিকগঞ্জের ঘিওর থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে ৬ জুয়াড়িকে আটক করে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে বলে থানা সূত্রে জানা গেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সোমবার গভীর রাতে বাইলজুরি গ্রাম থেকে জুয়া খেলা অবস্থায় ৬ জুয়াড়িকে আটক করে পুলিশ তাদের ঘিওর থানায় নিয়ে যায়। এখানে প্রতিনিয়তই টাকার বিনিময়ে তাস খেলা চলতো। টাকার বিনিময়ে তাস খেলে অনেকেই নিঃস্ব হয়ে গেছে। জুয়ার টাকার যোগান দিতে অনেক যুবক ইতোমধ্যেই বিপদগামী হয়ে গেছে। ঘিওর থানা পুলিশের এই অভিযানের মাধ্যমে ধ্বংস হলো জুয়ার আড্ডা আর রক্ষা পেল অনেকের সংসার। ঘিওর থানা পুলিশের এহেন কাজকে তাঁরা সাদুবাদ জানিয়েছেন।

মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) বিকেলে বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে দৌলতপুর উপজেলার শ্যামপুর গ্রামের সুরুজ শেখ, ঘিওর উপজেলার বাইলজুরি গ্রামের বাবুল বেপারি, ইনসান আলী, শাহিনুর ইসলাম, চর বাইলজুরির মোজাফফর হোসেন ও ঘিওর পূর্ব পাড়ার দুলাল শেখকে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে বলে বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গেছে।

ঘিওর সরকারি কলেজের এক প্রভাষক বলেন, এই তাস খেলার কারণে অনেকের সাজানো সংসার ভেঙে তছনছ হয়ে গেছে। সম্প্রতি দেখা যাচ্ছে, অনেক শিক্ষিত যুবক কাজকর্ম না করে দিনের পর দিন তাসের নেশায় পড়ে থাকে। এতে সে হারিয়ে ফেলছে কর্মক্ষমতা, সংসারে দেখা দিচ্ছে আর্থিক অনটন আর পরিবেশ হচ্ছে নোংরা। এদের অনুসরণ করে অনেক শিক্ষার্থীরা হচ্ছে অনুপ্রাণিত। তাই হাটবাজার, চায়ের দোকান ও রাস্তাঘাটে চলমান তাসের আড্ডার বিরুদ্ধে প্রশাসন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করলে পরিবেশ হবে সুশৃঙ্খল আর যুবসমাজ হবে কর্মমুখর।

ঘিওর থানার ওসি সুকুমার বিশ্বাস গণমাধ্যমকে জানান, মানিকগঞ্জের পুলিশ সুপার গোলাম আজাদ খানের দিকনির্দেশনায় এবং শিবালয় সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মারুফা নাজনীনের সার্বিক সহযোগিতায় সোমবার গভীর রাতে উপজেলার বাইলজুরি গ্রামে অভিযান চালিয়ে জুয়া খেলা অবস্থায় ৬জন জুয়াড়িকে আটক করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে ৭৭ হাজার ৬৬৫ টাকা ও জুয়া খেলার সরঞ্জাম জব্দ করা হয়। আটকদের বিরুদ্ধে ঘিওর থানায় মামলা হয়েছে। আসামিদের বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। তিনি আরো জানান, হাটবাজারে, চায়ের দোকানে কিংবা রাস্তাঘাটে তাসের আড্ডা নজরে আসলে সম্পৃক্তদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সুরেশ চন্দ্র রায়