বিজয়নগরে ২১ মাসের বকেয়া বেতন পেল এক খন্ডকালীন শিক্ষক

বিজয়নগর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, 25 May 2022, 71 বার পড়া হয়েছে,

বিজয়নগর ( ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি:
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে জনতার চাপে পড়ে ২১ মাসের বকেয়া বেতন পেল এক খন্ডখালিন শিক্ষক এবং প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে রয়েছে অর্থ কেলেঙ্কারির অভিযোগ। জানা যায়, উপজেলার চান্দুরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সুমিত্রা রানী দাস নামে একজন খন্ডখালিন শিক্ষক ২১ মাস ধরে কোন বেতন না পেয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছিলেন। উক্ত বিদ্যালয়ের প্রধাণ শিক্ষক হারুন-অর-রশিদ বেতন না দিয়ে বিভিন্ন তালবাহানা করছিলেন। চাকুরী হারানোর ভয়ে উক্ত খন্ডকালীন শিক্ষক মুখ না খুলে খুব কষ্টে ছিলেন। উক্ত প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ৩৭ জন অভিভাবক উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর অর্থ কেলেঙ্কারির অভিযোগ তুললে গত ২৩ মে ১১ টার সময় উপজেলা শিক্ষা অফিসার শাহনাজ পারভীন ও সহকারী শিক্ষা অফিসার, এডহক কমিটির সভাপতি মোঃ মানিক ভূইয়া তদন্তে আসেন এবংতদন্তে সুমিত্রা রানী দাস নামে একজন খন্ডখালিন শিক্ষকের ২১ মাসের বেতন বকেয়া পান। পরে প্রধান শিক্ষক মোঃ হারুন-অর-রশিদকে চাপপ্রয়োগ করলে সে উপস্থিত সবার কাছে ক্ষমা চান এবং টাকা ফেরত দেয়ার কথ জানান।
খন্ডখালিন শিক্ষক সুমিত্রা রানী দাস জানান, আমি দীর্ঘদিন বেতন না পেয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছিলাম। তদন্তের দিন উপস্থিত না থাকার জন্য প্রধান শিক্ষক হারুন স্যার আমাকে চাপপ্রয়োগ করলেও আমি উপস্থিত হয়ে মানবেতর জীবনযাপনের কথা সবাইকে খুলে বলি। উপস্থিত সবাই আমার কথা শুনে প্রধাণ শিক্ষককে বকেয়া বেতন পরিশোধের জন্য চাপ দিলে সে আমাকে আজ বুধবার আগামী মাসের ৮ তারিখে ইস্যুকৃত ৪২ হাজার টাকার একটি চেক প্রদান করেন। এখন ৮ তারিখ চেক ভাঙ্গিয়ে নগদ টাকা পেলেই অনেক ঋন পরিশোধ করতে পারব।
উপজেলা শিক্ষা অফিসার শাহনেওয়াজ পারভীন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার আমাদেরকে উক্ত প্রধাণ শিক্ষকের বিষয়ে দায়িত্ব প্রদান করেছেন। আমরা সকল বিষয়াদি খতিয়ে দেখছি