টাঙ্গাইলে করোনা ও উপসর্গে আরও ১১ জনের মৃত্যু

টাঙ্গাইল, 4 July 2021, 259 বার পড়া হয়েছে,

টাঙ্গাইল সংবাদদাতা: টাঙ্গাইলে করোনা ভাইরাসের পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে। প্রতিদিনই হু হু করে বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা। গত ২৪ ঘণ্টায় টাঙ্গাইল জেনালের হাসপাতালে করোনায় ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে রোববার সকাল পর্যন্ত ১২৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ছাড়া করোনার উপসর্গ নিয়ে জেনারেল হাসপাতালে আরো ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে।

এদিকে করোনায় নতুন করে ১৯৫ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ৪০.৫৪%। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮ হাজার ৪০৪ জন।

গত ৪ দিনে করোনায় ৬৯৭ জন আক্রান্ত, আর মৃত্যু হয়েছে ১৭ জনের। জুন মাসে জেলায় ২ হাজার ৯২৮ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। মৃত্যু হয়েছে ২৬ জনের।

সিভিল সার্জন অফিস সূত্র জানায়, গতকাল শনিবার টাঙ্গাইল এবং ঢাকায় ৪৮১টি নমুনা প্রেরণ করা হয়। এতে রোববার নতুন করে ১৯৫ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়। করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৪ জনের এবং উপসর্গ নিয়ে ৭ জনের মৃত্যু হয়। গত বছরের ৮ এপ্রিল জেলায় প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। সদর উপজেলায় করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা সব চেয়ে বেশি। আর সব চেয়ে কম করোনা রোগী শনাক্ত হয় বাসাইল উপজেলায়।

এদিকে প্রতিদিনই হাসপাতালে করোনা এবং মৃত্যুর কারণে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে জেলাবাসী। হাসপাতালে রোগীর সংখ্যা বাড়ায় কর্তৃপক্ষককে হিমশিম খেতে হচ্ছে। করোনার নমুন হটস্পর্টে পরিনত হতে চলেছে টাঙ্গাইল। তাই করোনা প্রতিরোধে সকলকেই এখনি সচেতন এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে বলে চিকিৎসক এবং বিশেষ্ণরা জানিয়েছেন।

এ ব্যাপারে টাঙ্গাইলের সিভিল সার্জন ডা. আবুল ফজল মো. শাহাবুদ্দিন খান বলেন, বিগত কয়েকদিন ধরে করোনায় এবং উপসর্গে মৃত্যুর সংখ্যা বাড়ছে। এর মূল কারণ হচ্ছে, করোনায় আক্রান্ত হওয়ার অনেক দেরি করে খারাপ অবস্থায় রোগীরা হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন। এছাড়াও বয়ষ্ক, ডায়াবেটিস, পেশার, ক্যান্সারের রোগীরাও করোনায় আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হচ্ছে। যার ফলে শেষ সময়ে অক্সিজেনের সার্পোট কাজে আসছে না। বিশেষ করে ১৪ দিনে পর্যালোচনা করা দেখা যায়, ৫০ বছরের উপরের লোকের বেশি মৃত্যু হয়েছে, আর মাত্র ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে ৪০ বছরের নিচের।

তিনি আরো বলেন, টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে করোনায় ইউনিটে প্রতিদিনই ভর্তিকৃত রোগীর সংখ্যা বাড়েই চলছে। করোনা প্রতিরোধে সবাইকে সচেতন এবং স্বাস্থ্যবিধি মনে চলতে হবে বলে তিনি জানান।