বিজয়নগরে বন্যায় কবলিত পরিবার, দেখার কেউ নেই

বিজয়নগর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, ভিডিও, 5 August 2020, 57 বার পড়া হয়েছে,

রাইট টাইমস ডেস্ক:ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরের প্রাণকেন্দ্র মির্জাপুর গ্রামে অবস্থিত বন্যা কবলিত একটি পরিবারের দুঃখের নেই কোন সীমা রেখা। সরে জমিনে দেখা যায়, উপজেলার মির্জাপুর গ্রামের দক্ষিণ পার্শ্বে উপজেলা ভবনের দক্ষিণ প্রান্থ মহব্বতপুর মৌজায় বসবাসরত ছফি মিয়ার (৬০) বাড়িটি বন্যায় ঘরবাড়ি ডুবিয়ে দিয়েছে।গৃহপালিত পশু পাখি নিয়ে তাদের অনাহারে দিন কাটছে। নেই তাদের কোন আশ্রয়স্থল কিংবা থাকা খাওয়ার ব্যবস্থা। ঘরের ভীতরে মাছা বেধে তার পরিবারের বারজন সদস্য বহু কষ্টে দিনযাপন করছে। বন্যায় তাদের খাবার ও বাসস্থানের জায়গায় ভেসে গেছে। ভেসে গেছে তাদের খাবারের জন্য সংরক্ষিত চাউল, ডাল ও নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিষপত্র। তাদের দেখার কেউ নেই । তাদের গরু,ছাগল ও হাস মুরগীগুলো বন্যার পানিতে ভাসছে। নেই তাদের কোন বিদুৎ ও বিশুদ্ধ পানির ব্যবস্থা। ফলে তাদের কষ্ট দিন দিন বেড়েই চলছে। বর্তমানে বন্যার পানি শুকিয়ে ভিটাতে অবস্থান করলেও পানি বাহিত নানান রোগে ভুগছে তার পরিবার। তার পরিবারের বড় ছেলে ও মেয়েরা অসুস্থ থাকায় আর্থিক সংকট দিন দিন বেড়ে চলছে। এ ব্যাপারে উক্ত বাড়ির মালিক ছফি মিয়া (৬০) সাংবাদিকদের জানান, আমরা অনেক কষ্টে, রোগে দুঃখে দিন যাপন করছি। এক রাতেই বন্যা আমাদের বাড়ি ঘর প্লাবিত করে ফলে গরু,বাছুর ও হাস মুরগী গুলো নিয়ে আমরা বিপাকে পড়ে যায়। আমাদেরকে দেখতে কেউ আসে না এমনকি কোন জনপ্রতিনিধিরা আমাদের খবরও রাখে নাই। বর্তমানে বন্যার পানি কমে যাওয়ায় আমরা পানি বাহিত নানান রোগে ভুগছি। আমাদের দেখার কেউ নেই । নেই কোন বিদুৎ সংযোগ কিংবা রাস্থা ঘাটের ব্যবস্থা । অনাহারে কষ্টে পরিবারের সকলকে নিয়ে দিন যাপন করছি। আমাদের খাবারের আসবাব পত্র বন্যার পানিতে ভেসে গেছে। এ বলে তিনি কেদে ফেলেন। এ ব্যপারে বিহিত ব্যবস্থার জন্য প্রশাসনের সু দৃষ্টি কামনা করছে তার পরিবার।

  • 6
    Shares