আটপাড়া উপজেলায় বাজারে নিষিদ্ধ কারেন্ট জালের রমরমা ব্যবসা

নেত্রকোণা, 18 July 2020, 638 বার পড়া হয়েছে,

মোঃ নুরুল হুদা: নেত্রকোনা আটপাড়া উপজেলা স্বরমুশিয়া ইউনিয়ন কোনাপাড়া বাজারে নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল অবাধে বিক্রি হচ্ছে।

বাংলাদেশের মত্স্য সম্পদের জন্য ক্ষতিকর বিবেচনায় ১৭ বছর আগে ২০০২ সালে সংশোধিত মৎস্য সংরক্ষণ আইনে কারেন্ট জাল উৎপাদন, পরিবহন, বাজারজাতকরণ, সংরক্ষণ ও ব্যবহার সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করা হয়। কিন্তু বাস্তবে এই আইন যে মানা হচ্ছে না।
তা আবারো বোঝা গেল কোনাপাড়া বাজার পরিদর্শন করে।

এসব জাল দিয়ে নদী,খাল-বিলে দেশী প্রজাতির মাছ অবাধে নিধন করা হচ্ছে। বিশেষ করে ছোট ছোট না না জাত মাছ নিধনের উৎসব চলছে। বর্ষার শুরু থেকেই এসব জাল দিয়ে মাছ ধরা শুরু হয়েছে।

গত শুক্রবার কোনাপাড়া বাজার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়।৪০/৫০ জন বিক্রেতা কারেন্ট জালের বাজার বসিয়েছেন। তারা প্রকাশ্যে এই জাল বিক্রি করছেন। কেউ বসে আবার কেউ দাঁড়িয়ে কেউবা আবার গলিতে দোকান সাজিয়ে কেউ আবার বড় দোকান সাজিয়ে ধরি, নেট ,পলিথিনের বান্ডেল, এর আড়ালে দোকানের ভেতরে পার্টিশন দিয়ে বিক্রি করছেন এই কারেন্ট জাল।

প্রতি শুক্রবার ও সোমবার এ দুটি হাটে লক্ষাধিক টাকার কারেন্ট জাল বিক্রি হয় বলে জানালেন ব্যবসায়ীরা। জাল বিক্রিয় হলে বা ক্রয় করলে দিতে হয় ইজারাদারের লোকজনকে টাকা । এ ব্যাপারে ইজারাদার রঞ্জিত কুমার সাহার সঙ্গে কথা বললে তিনি জানান ৪/৫ লক্ষ টাকা ডাক হয় ।

কিন্তু এখনো জালের বাজার ডাকতে পারতেছিনা অনেক ঘুরাঘুরি করতেছি আপনি নিউজ করবেন না আপনি এসেছেন খরচের টাকা দিয়ে দিচ্ছি চলে যান নিউজ করতে হবে না । কোনাপাড়া বাজারের জাল বিক্রেতা মোঃ রতন মিয়াকে জিজ্ঞাসা করলে তিনি বলেন জাল বিক্রি করি অনেকদিন যাবত রাজনীতি ও করি আপনারা আসলে পরিচয় দিবেন আগে বলবেন আমাদেরকে।

মেন রাস্তার গলিতে তাকা আরেক জাল বিক্রেতা মোহাম্মদ আমীন বলেন আমি টুকটাক এনে বিক্রি করি এ বাজারের বড় ব্যবসায়ী তো আরো আছে।

এ বিষয়েএ বিষয়ে জেলা মৎস্য কর্মকর্তা ফজলুল কাদের সঙ্গে কথা বললে তিনি বলেন, আমাদের সরাসরি মোবাইল কোড করার সরাসরি পাওয়ার নেই এমনকি আমাদের জনবল কম উপজেলা অথবা জেলা ম্যাজিস্ট্রেট এর সমন্বয়ে পুলিশ প্রশাসনের সমন্বয়ে তারপর মোবাইল কোড করতে হয় আমাদের ।

আটপাড়া উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাহফুজা সুলতানা বলেন কারেন্ট জাল নিষিদ্ধ আমাদের কাছে সঠিক তথ্য প্রমাণ আসলে তাৎক্ষণিক আমরা আইনানুগ ব্যবস্থা নিব।