ভুতুড়ে বিদ্যুৎ বিল সমস্যার সমাধান না হলে ১৫ জুলাইয়ের পর কঠোর পদক্ষেপ: বিইআরসি

আইন-আদালত, 8 July 2020, 87 বার পড়া হয়েছে,

রাইট টাইমস ডেস্কঃ বিদ্যুৎ বিলের বিভ্রাটে সংকটে পরেছে দেশের লাখো ভোক্তা। টাস্কফোর্স গঠন করে সমাধানের চেষ্টা করছে সরকার। তবে বিদ্যুৎ বিল নির্ধারণ করে দেওয়া প্রতিষ্ঠান এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন দৃশ্যমান কোনো উদ্যোগ গ্রহণ করেনি।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে কমিশনের চেয়ারম্যান আব্দুল জলিল বলেন, আমরা সব বিষয় পর্যবেক্ষণ করছি। ইতোমধ্যে কিছু ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। বিল ঠিক করে দেওয়ার পাশাপাশি দায়ীদের শাস্তির আওতায় আনা হচ্ছে।
কমিশনের আরেক সদস্য জানান, কমিশন সরাসরি এ বিষয়ে গণশুনানি করতে পারে না। আইনে এমন কোনও ধারা নেই। তবে গ্রাহক চাইলে পৃথক পৃথকভাবে অভিযোগ করতে পারেন। এসব অভিযোগের শুনানি হতে পারতিনি আরও বলেন, বিদ্যুৎ বিল ঠিক করে দেওয়ার যেসব বিষয় আলোচনায় এসেছে তারা তা পর্যবেক্ষণে রেখেছে। এ বিষয়ে বিতরণ কোম্পানিকে নির্দেশনাও দিয়েছেন তারা। তাদের নির্দেশের পরই কমিটি করে দায়ীদের শাস্তি দেওয়া হয়েছে।

[৭] বিইআরসি আইন ২০০৩-এর অধ্যায় ১০-এ সালিশ-মীমাংসা এবং আপিলের ক্ষেত্রে বলা হয়েছে কেউ সংক্ষুব্ধ হলে কমিশন বরাবর নির্ধারিত পন্থা অনুসরণ করে আবেদন করতে পারেন। এক্ষেত্রে কমিশন তার লাইসেন্সের সঙ্গে শুনানির ব্যবস্থা করতে পারেন।
এদিকে, গ্রাহকের স্বার্থ রক্ষায় গত ২৪ মে বাংলাদেশ কনজুমার এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব) কমিশনের কাছে এ বিষয়ে সমাধানের জন্য চিঠি দেয়। ওই সময় বিইআরসির পক্ষ থেকে বলা হয়, আইন অনুযায়ী এ ধরনের চিঠি তারা গ্রহণ করতে পারেন না। তবে তাদের অভিযোগ আমলে নিয়ে বিতরণ কোম্পানিগুলোকে বিলগুলো দ্রুত ঠিক করে দিতে বলে বিইআরসি।
জ্বালানি বিশেষজ্ঞ ও ক্যাব সদস্য শামসুল আলম বলেন, এই ঘটনায় ৪৫ দিন পরে অর্থাৎ ৯ জুলাইয়ের পর রাষ্ট্রপতি বরাবর এ বিষয়ে চিঠি দেবে ক্যাব। চিঠিতে কমিশনের সদস্যদের অযোগ্যতা তুলে ধরা হবে। তারা গ্রাহকের পক্ষে কিছুই করেনি তাও বলা হবে।

  • 9
    Shares