অভিনব কায়দায় অ্যাম্বুলেন্সে করে গাঁজা পাচারকালে অ্যাম্বুলেন্স ও মোটরসাইকেলসহ তিনজনকে আটক করেছে জনতা।

সিলেট, 7 June 2020, 228 বার পড়া হয়েছে,

লিটন পাঠান মাধবপুর প্রতিনিধি:হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার ৪নং পাইকপাড়া ইউনিয়নে (৬-জুন) সকালে, হলহলিয়া গ্রামে এলাকাবাসী মাদক আটক করে পুলিশকে খবর দিলে থানার এসআই শহিদুল এএসআই উস্তার মিয়া ইমন একদল পুলিশ ঘটনাস্থল গিয়ে তাদের থানায় নিয়ে আসেন।

এসময় অ্যাম্বুলেন্স তল্লাশী করে ১৫কেজি গাঁজা পাওয়া যায়।
আটককৃত আসামীরা হলো-উপজেলার সাদ্দাম বাজার হাপ্টারহাওর গ্রামের মৃত সিদ্দিক মিয়ার পুত্র মনা (২৫) বড়াইল গ্রামের শফিক মিয়ার পুত্র মোঃ শরিফ উদ্দিন (২২) একই গ্রামের আঃ রউপ মিয়ার পুত্র আশিক মিয়া(২৫)।
এছাড়াও এদিকে গত রাতে ৫২০পিছ ইয়াবা সহ আবু সায়েদ সোহাগ নামের এক মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে শ্রীমঙ্গল র‌্যাব,চুনারুঘাট উপজেলার আসামপাড়া আকিব ব্রিকস ফিল্ডের কাছ থেকে মোটরসাইকেলসহ তাকে আটক করা হয়।

পরে তাকে চুনারুঘাট থানায় সোপর্দ করা হয়েছে। সে হবিগঞ্জ সদর উপজেলার পইল গ্রামের আবু তালেবের ছেলে।
জানা যায়, আটক মনা ইউপি সদস্য সোনাই মেম্বার হত্যার আসামি ও হবিগঞ্জ জেলখানাতে সে মাদক ব্যবসা করে।
এলাকাবাসী সূত্র জানায়, ১৫ কেজি গাঁজা চুনারুঘাট উপজেলার ক্ষমতাশীল এক প্রভাবশালী নেতার ছেলে যুবলীগ নেতা লিমন । যিনি দলের ইমেজকে কাজে লাগিয়ে এ ব্যবসা করছেন।
সে ও তার পরিবার প্রভাবশালী হওয়ায় কেউ প্রতিবাদ করতে সাহস পায় না।
অনেকেই বলেন চুনারুঘাট থেকে যত মাদক পাচার হয়েছে এর পেছনে ওই নেতার মদদ রয়েছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখতে প্রশাসনের নিকট দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী।