সাংবাদিক নির্যাতনকারী ছাত্রলীগ নেতা নাবিল গ্রেপ্তার

চট্টগ্রাম, 1 April 2020, 191 বার পড়া হয়েছে,

স্থানীয় এক ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে চাল চুরির অভিযোগ করায় সাংবাদিকের ওপর হামলাকারী এক ছাত্রলীগ নেতাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। হামলার শিকার ওই সাংবাদিকের নাম সাগর চৌধুরী। গ্রেপ্তার ছাত্রলীগ নেতার নাম নাবিল হায়দার। নাবিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। তিনি এসএম হলের আবাসিক ছাত্র এবং ছাত্রলীগের সক্রিয় কর্মী।

বুধবার (১ এপ্রিল) দুপুর দেড়টার দিকে ভোলার বোরহানউদ্দিনের উপজেলা সড়ক এলাকার বাসা থেকে নাবিলকে গ্রেপ্তার করা হয়। লালমোহন সার্কেলের এডিশনাল পুলিশ ‍সুপার রাসেলুর রহমানের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল তাকে গ্রেপ্তার করে।

বোরহানউদ্দিন থানার ওসি এনামুল হক জানান, সাগর চৌধুরী বাদী হয়ে তাকে নির্যাতনের ঘটনায় মঙ্গলবার দিবাগত রাত দেড়টায় নাবিল হায়দারকে এক নম্বর এবং অজ্ঞাত পাঁচ জনকে আসামি করে থানায় মামলা করেন।

গত মঙ্গলবার (৩১ মার্চ) সকালে উপজেলা সদরের রাজমনি সিনেমা হলের সামনে নাবিল হায়দার সাংবাদিক সাগর চৌধুরীকে মারধর করেন। সাগর চৌধুরী নাবিলের বাবা উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও স্থানীয় বড় মানিকা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন হায়দারের বিরুদ্ধে জেলেদের জন্য আসা চাল চুরির অভিযোগ আনেন। এই ক্ষোভ মেটাতে ওই সাংবাদিককে মোবাইল চোর ও ছিনতাইকারী অপবাদ দিয়ে পেটান নাবিল হায়দার। পরে নির্যাতনের ঘটনার একটি ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়। এরপর ওই সাংবাদিকের বক্তব্যের একটি ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়।

এই ঘটনায় সাগর চৌধুরী বাদী হয়ে তাকে নির্যাতনের ঘটনায় মঙ্গলবার দিবাগত রাত দেড়টায় নাবিল হায়দারকে এক নম্বর এবং অজ্ঞাত পাঁচ জনকে আসামি করে থানায় মামলা করেন।

বোরহানউদ্দিন উপজেলা নির্বাহী অফিসার বশির গাজী জানান, ‘বড় মানিকা ইউনিয়নে জেলেদের চাল কম দেওয়া হচ্ছে, এরকম অভিযোগে জেলেদের বক্তব্যসহ একটি ভিডিও সোমবার সাগর আমাকে দেখায়। আমি তখনই ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও সচিবকে ফোন করে জানতে চাই। এঘটনায় সাংবাদিককে মারধর, নির্যাতন এটা ঠিক নয়, অন্যায়। এর বিচার প্রত্যাশা করি।’

নাবিলের বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় হল ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন বলেন, ‘সাংবাদিক নির্যাতন খুবই দুঃখজনক ঘটনা। এজন্য তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হোক।