বাঞ্ছারামপুরে ১৪ বছরের কিশোরী ধর্ষণের অভিযোগ

বাঞ্চারামপুর, 25 March 2020, 303 বার পড়া হয়েছে,

ফয়সাল বাঞ্চারামপুর থেকে ঃ
ব্রাহ্মণবাড়িয়া বাঞ্ছারামপুর সদর ইউনিয়নের ধারিয়ারচর গ্রামের মোঃ শাহিন (শাহিন চোরার) বিরুদ্ধে ১৪ বছরের কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে।
গত শনিবার রাতে বাঞ্ছারামপুর উপজেলার ধারিয়ারচর গ্রামের তন্মী আক্তার(১৪) সাথে এ ঘটনা ঘটে। তন্মী আক্তার ধারিয়ারচর গ্রামের মোহাম্মদ আলীর মেয়ে। কিশোরীকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

অভিযুক্ত মোঃ শাহিন (২৬) ধারিয়ারচর গ্রামের মৃত শাহজাহান মিয়ার ছেলে। ঘটনার পর থেকে তিনি পলাতক রয়েছেন। কিশোরীর ভাষ্যমতে, গত শনিবার রাত ৯টার দিকে আমি ওয়াস রুম থেকে আসার সময় আমার গলায় ছুরি ধরে নিয়ে যায় শাহিন। রাতের অন্ধকারে কোথায় নিয়ে যায় সেটা আমি বলতে পারছি। পরের দিন সকালে দেখি আমি একটি জমির মধ্যে শুয়ে আছি। আমাকে অচেতন অবস্থায় বুধাইরকান্দি এলাকাবাসী উদ্ধার করেন। কিশোরীর মা অভিযোগ করে বলেন, ‘আমার মাইয়াডারে রাইতের( রাতের) আন্দাইরে(অন্ধকারে) ছুরি দেখাইয়া নিয়া গিয়া নির্যাতন করে শাহিন। আমার নিষ্পাপ মাইয়া ওর কী ক্ষতিহান করছিল।’ কিশোর বাবা বলেন, ‘দিনমজুরি কইরা যা পাই, তা দিয়া সংসার চালাই। মাইডারে নিয়া এহন হাসপাতালে আইছি। ডাক্তারের এহনো পরিষ্কার কইরা কিছু বলে না। ভয়ের মধ্যে আছি। ঘটনার পর হাসপাতালে পুলিশ আসছিল। তাদের কাছে অভিযোগ করেছি।’

অভিযুক্ত শাহিনের সাথে মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তাঁকে পাওয়া যায়নি। তবে, শাহিন মিয়ার এক প্রতিবেশী নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, সে তো এলাকায় মদ,গাজা এবং চুরি করে তাই তাকে আমরা সবাই চোরা শাহিন বলি।গরীব মেয়েটাকে ধর্ষণ করে পালিয়েছে। আমরা তাঁর বিচার চাই।’

স্থানীয় ইউপি মেম্বার মোঃ শাহাবুদ্দিন বলেন, মেয়েটিকে ছুরি দেখিয়ে তুলি নিয়েছে ঘটনাটি সত্য।

এব্যাপারে বাঞ্ছারামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মোহাম্মদ আল- মামুন বলেন, ‘সকালে মেয়েটিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আমরা মেয়েটিকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়েছি। ধর্ষণ হয়েছে কি না, তা পরীক্ষা না করে বোঝা যাবে না। ফরেনসিক রিপোর্টের জন্য আমরা মেয়েটিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে পাঠাব।’

এব্যাপারে সহকারী পুলিশ সুপার (নবীনগর সার্কেল) মোঃ মকবুল হোসেন বলেন, ইতিমধ্যে আমরা ঘটনাটি জানতে পেরেছি, আমরা আসামীকে ধরার জন্য চেষ্টা করছি। তিনি আরো বলেন, আমরা এখনো অভিযোগ পাইনি। মামলা হলে আমরা আইনগত ব্যবস্থা নিব।