রাইট টাইমস ডেস্কঃ মাধবপুরে মানব পাচারকারী মামলায় হাজত কেটে  আক্রমন করল বাদী‌কে । জানা‌ যায়, হবিগঞ্জের মাধবপুরে মানব পাচারকারী মামলায় জেল কেটে কাউন্সিলরের লোকজন বাদীর ছেলেকে রাস্তা আটকিয়ে কথিত ইভটিজিংয়ের অভিযোগ এনে মারধোর করে জোর পূর্বক উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

‌নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট অভিযোগের সত্যতা না পেয়ে তাকে মুক্ত করে দেন। আজ মঙ্গলবার দুপুরে মাধবপুর সদরে এ ঘটনা ঘটে।

উপজেলার জোয়ালভাঙ্গা গ্রামের ইয়াতীম আলী জানান,তার ভাই আবু বক্কর ২০১৮ সালে মাধবপুর পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর লাল মিয়া ও তার ছেলে জাহাঙ্গীর মিয়ার বিরুদ্ধে আদালতে একটি মানব পাচার মামলা করেন।

এ মামলায় কাউন্সিলর লাল মিয়া,ও তার ছেলের বিরুদ্ধে আদালত গ্রেফতারি পরোয়ানা জারী করেন। গ্রেফতারি পরোয়ানা বলে মাধবপুর থানা পুলিশ লাল মিয়া কে ১৭ তারিখ রাতে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরন করলে বিচারক তাকে কারাগারে পাঠায়।

কারাগার থেকে জামিনে বের হয়ে লাল মিয়া এর প্রতিশোধ নিতে গত মঙ্গলবার দুপুরে বাদীর ছেলে টমটমচালক জুনায়েদ মিয়াকে উপজেলার সদরে আটক করে লাল মিয়ার লোকজন। তারপর এলোপাথাড়ি পিটিয়ে আহত করে জুনায়েদ কে আহত করে।

পরে কাউন্সিলর লাল মিয়ার মেয়েকে ইইভটিজিং করার কথিত অভিযোগ এনে আহত জুনায়েদ কে উপজেলা নির্বাহী কার্যালয়ে নিয়ে আসলে কথিত অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় জুনায়েদ কে মুক্ত করে দেয়া হয়।

স্বজনরা গুরুতর আহত অ অবস্থায় জুনায়েদ কে মাধবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করলে তার অবস্থার অবনতি হলে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে প্রেরন করেন।

"/>

মাধবপু‌রে মানব পাচারকারী মামলার আসামী আক্রমন করল বাদী‌কে

সিলেট, 5 March 2020, 215 বার পড়া হয়েছে,

রাইট টাইমস ডেস্কঃ মাধবপুরে মানব পাচারকারী মামলায় হাজত কেটে  আক্রমন করল বাদী‌কে । জানা‌ যায়, হবিগঞ্জের মাধবপুরে মানব পাচারকারী মামলায় জেল কেটে কাউন্সিলরের লোকজন বাদীর ছেলেকে রাস্তা আটকিয়ে কথিত ইভটিজিংয়ের অভিযোগ এনে মারধোর করে জোর পূর্বক উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

‌নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট অভিযোগের সত্যতা না পেয়ে তাকে মুক্ত করে দেন। আজ মঙ্গলবার দুপুরে মাধবপুর সদরে এ ঘটনা ঘটে।

উপজেলার জোয়ালভাঙ্গা গ্রামের ইয়াতীম আলী জানান,তার ভাই আবু বক্কর ২০১৮ সালে মাধবপুর পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর লাল মিয়া ও তার ছেলে জাহাঙ্গীর মিয়ার বিরুদ্ধে আদালতে একটি মানব পাচার মামলা করেন।

এ মামলায় কাউন্সিলর লাল মিয়া,ও তার ছেলের বিরুদ্ধে আদালত গ্রেফতারি পরোয়ানা জারী করেন। গ্রেফতারি পরোয়ানা বলে মাধবপুর থানা পুলিশ লাল মিয়া কে ১৭ তারিখ রাতে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরন করলে বিচারক তাকে কারাগারে পাঠায়।

কারাগার থেকে জামিনে বের হয়ে লাল মিয়া এর প্রতিশোধ নিতে গত মঙ্গলবার দুপুরে বাদীর ছেলে টমটমচালক জুনায়েদ মিয়াকে উপজেলার সদরে আটক করে লাল মিয়ার লোকজন। তারপর এলোপাথাড়ি পিটিয়ে আহত করে জুনায়েদ কে আহত করে।

পরে কাউন্সিলর লাল মিয়ার মেয়েকে ইইভটিজিং করার কথিত অভিযোগ এনে আহত জুনায়েদ কে উপজেলা নির্বাহী কার্যালয়ে নিয়ে আসলে কথিত অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় জুনায়েদ কে মুক্ত করে দেয়া হয়।

স্বজনরা গুরুতর আহত অ অবস্থায় জুনায়েদ কে মাধবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করলে তার অবস্থার অবনতি হলে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে প্রেরন করেন।