সরাইলে সন্ত্রাসী হামলায় ইটমিলের শ্রমিকসহ আহত ৬

সরাইল, 22 October 2019, 359 বার পড়া হয়েছে,

মোঃ আলমগীর মিয়া: সরাইল  উপজেলার চুন্টা বাজারে আক্তার মেম্বারের দোকানের সামনে গত রবিবার সন্ধ্যায় দুলাল মিয়া একদল সন্ত্রাসী নিয়ে হাদিস মিয়া নামের এক ইটমিল শ্রমিকের উপর হামলা চালায়। এ ঘটনায় হাদিস মিয়া গুরুতর আহত হয়ে সদর হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। এছাড়াও গত প্রায় তিনমাস আগে দেশীয় অস্ত্র রামদা, হকিস্টিক ও রোহার রড় ও বল্লম দিয়ে দুলাল বাহিনী চুন্টার নগর হাটির হাদিস মিয়ার বসতবাড়ীতে হামলা চালিয়ে ৫ জনকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করেছে বলে জানা যায় এবং এ ঘটনায় সরাইল থানায় মামলা হয়। উক্ত মামলার শত্রুতার জেরে আসামীরা বরিবার সন্ধ্যায় চুন্টা বাজারে মামলার বাদীর উপর সন্ত্রাসী হামলা করেছে বলে জানিয়েছেন এলাকাবাসি। আহত হাদিসের ভাই জাহাঙ্গীর জানায়, আমার ভাই সন্ধ্যায় বাজারে আসা মাত্র উৎপেতে থাকা সন্ত্রাসী দুলাল মিয়া, ফুল মিয়া, আওয়াল মিয়া, লাল মিয়া, ছায়েদ মিয়া সহ অজ্ঞাত কয়েকজন দেশীয় অস্ত্র রামদা, হকিস্টিক, লোহার রড় ও বল্লম প্রদর্শন করে জনমনে ভিতিকর পরি¯ি’তি সৃষ্টি করিয়া ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করে হাদিস মিয়াকে দৌড়ায়ে ধরে এলোপাতারী আঘাত করে তাকে মেরে ফেলার চেষ্ঠা করে। বাজারের লোকজন তাকে মুমুর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়। এ ব্যাপারে চুন্টা ইউপি চেয়ারম্যান শাহজাহান মিয়া বলেন, দুলাল গংরা সব সময় মানুষের উপর অত্যাচার করে। নিরিহ লোকের উপর এমন অত্যাচার নিঃসন্দেহে অমানবিক। তারা প্রভাবশালী বিধায় তাদের দাঙ্গা কেউ বন্ধ করতে পারেনা। স্থানীয় ইউপি মেম্বার রহমত আলী বলেন, এতবড় ঘটনার পরও তারা কাউকে পরোয়া করছেনা, দুলাল গংরা সব সময় দাঙ্গাবাজি করে। মামালার দায়িত্ব প্রাপ্ত সরাইল থানার এস আই শাহ কামাল বলেন, হাদিস মিয়া বাদী হয়ে যে মামলা করেছিল এ মামলায় সকল আসামীর বিরুদ্ধে অভিযোগ পত্র আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। গতকালের ঘটনা জানার পর পূনরায় মামলা করার কথা বলেছি।