মহিলা চোরের প্রতিযোগিতা থাকলে ধরমন্ডলের নারীরা চ্যাম্পিয়ন হতে পারতো!

নাসিরনগর, 19 May 2019, 719 বার পড়া হয়েছে,



মোঃ আব্দুল হান্নান ,নাসিরনগর,ব্রাক্ষণবাড়িয়া,, বিশ্বের মানচিত্রে বাংলাদেশের যে অবস্থা ,ঠিক নাসিরনগরের মানচিত্রে ও ধরমন্ডলের তেমনি অবস্থা। উপজেলার একমাত্র অপরাধের অভয়াশ্রম এই ধরমন্ডল।এমন কোন অপরাধ নেই যেখানে হয় না। ধরমন্ডলে বিভিন্ন ধরনের মাদক,জুয়া,চুরি,চেইন চুরি,ডাকাতি ,দেহ ব্যাবসা,সহ চলে নানা জাতের অপরাধ।
স্থানীয় প্রভাবশালী নেতাকর্মী আর স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের ছত্র,ছায়ায় থেকে অপরাধীরা এ সব অপরাধ চালিয়ে যাচ্ছে বলে জানা গেছে।তারা ভাগবাটোয়ারা নিয়ে এক শ্রেণীর লোকদের দিয়ে চালিয়ে যাচ্ছে এমন অপরাধ। বিনিময়ে তারা নিচ্ছে ভাগের একাংশ।

জানা গেছে অপরাধ চত্রের সাথে কয়েকজন জনপ্রতিনিধি চৌকিদের বৌয়েরা ও জড়িত রয়েছে। ১৭ মে ২০১৯ রোজ শুক্রবার ফেনীর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল কালাম আজাদের( পিপিএম )এর দিক নির্দেশনা মোতাবেক পুলিশ পরিদর্শক(তদন্ত) সাজেদুল ইসলামের নির্দেশে, এস আই মোঃ আবু তাহের তার সঙ্গীয় ফোর্স সহ পাঁচ সদস্য বিশিষ্টি মহিলা চোর চক্র কে চুরি সংগঠিত করার সময় হাতে নাতে পাকড়াও করে।

ঘটনার বিস্তারিত বিবরণে জানা গেছে দীর্ঘদিন যাবত একটি সিন্ডিকেটের হয়ে এই নারী চোর চক্রটি কাজ করে যাচ্ছে। তাদের যন্ত্রনায় সব খুইয়ে সর্বশ্রান্ত হচ্ছে পথচারী ও সাধারন মানুষ। বিশেষ করে আসন্ন ঈদ কে সামনে রেখে ওরা আরো বেশী সক্রিয়।বিভিন্ন মার্কেট ও যানবাহনে ওরা মানুষকে অজ্ঞান করার দ্রব্য ব্যবহার করে চুরি সংগঠিত করে থাকে।
ঘটনার দিন ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কে চট্রগ্রাম মুখী ফেনী মডেল থানাধীন কসকা বাসষ্ট্যান্ড থেকে যৌথ ভাবে চুরি করার সময় তারা হাতে নাতে ধরা খেয়েছে। পরে জিজ্ঞাসাবাদ করে তাদের নাম ও পরিচয় নিশ্চিত করা হয়েছে।

পুলিশের হাতে গ্রেফতারকৃত পাঁচ সদস্য বিশিষ্ট চোর চক্রটির সবার বাড়ি ব্রাক্ষণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর উপজেলারর ধরমন্ডল ইউনিয়নের ধরমন্ডল গ্রামে। গ্রেফতারকৃতরা হলো – পারভীন বেগম(৩৫),স্বামী: আজিজুর রহমান রণি,আকলিমা বেগম(৩৫),স্বামী: রহিম মিয়া,শারমিন বেগম(৩২),স্বামী: আব্দুল মালেক,মমতাজ বেগম(১৯),স্বামীঃ এমরান হোসেন ও রোজিনা বেগম(২৫) স্বামী : মোঃ মিজান। এর আগেও ধরমন্ডলের নারীরা যশোহরের জিকরগাছা,চট্রগ্রামের কোতয়ালী থানা, নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ,চুনারুঘাট , রংপুরের পীরগাছা ও হবিগঞ্জের বাহুবল সহ দেশের বিভিন্ন থানায় গ্রেফতার হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

জানা গেছে অপরাধীর্ ধরা পরার সাথে সাথেই একশ্রেণীর লোকের শুরু হয় তাদের ছাড়িয়ে আনতে থানায় ও আদালতে তদবির ও দৌড় যাপ।