ডাকসু ভোট : নূরকে ভিপি হিসেবে মেনে নিল ছাত্রলীগ

রাজনীতি, 12 March 2019, 483 বার পড়া হয়েছে,


ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনের ভিপি বা সহ-সভাপতি পদে পরাজয়ের জের ধরে বিক্ষোভের পর ফলাফল মেনে নেয়ার ঘোষণা দিয়েছে ছাত্রলীগ।

বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের ছাত্র সংগঠনটির সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন উপাচার্যের বাসার সামনে এক প্রেস কনফারেন্সে এই ঘোষণা দেন।

সেখান থেকে বিবিসি’র ফয়সাল তিতুমীর জানাচ্ছেন: এসময় বিক্ষোভরত ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীদের উপাচার্যের বাসার সামনে থেকে সরে যাওয়ার আহ্বান করেছেন।

আজ মঙ্গলবার সকাল থেকে উপাচার্যের বাসভবনের বাইরে সমাবেশ করে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করতেছিল ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা।

ওই পদের নির্বাচনকে ‘প্রহসন’ উল্লেখ করে তারা মিছিল করছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস থেকে বিবিসি’র সংবাদদাতা শাহনাজ পারভীন জানিয়েছিলেন, বিক্ষোভের এক পর্যায় তারা কয়েকটি টায়ারে আগুন লাগিয়ে দেন।

এর আগে সোমবার মধ্যরাতে ফলাফল ঘোষণার সময় ভিপি পদে কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা নুরুল হককে সহ-সভাপতি পদে বিজয়ী ঘোষণার পরে বিক্ষোভ শুরু করে ছাত্রলীগের কর্মীরা। সে সময় তারা উপাচার্যকে আধাঘণ্টার জন্য অবরুদ্ধ করে রাখে।

কোটা আন্দোলনের নেতা হিসেবে পরিচিত সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের প্রার্থী নুরুল হক নুরু প্রায় দুই হাজার ভোটের ব্যবধানে ছাত্রলীগ সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভনকে হারিয়েছেন।

এদিকে ক্যাম্পাসে আরেকটি সমাবেশে বামজোট সমর্থিত বিভিন্ন ছাত্রসংগঠনের নেতারা নির্বাচন বাতিল ও পুনঃতফসিলের দাবি জানিয়েছে। নির্বাচনে ভিপি প্রার্থী লিটন নন্দী বলেছেন, ”আমরা ক্যাম্পাসে অবস্থান নিয়েছি।আমরা নির্বাচন বাতিল করে পুনঃতফসিল চাই।”

গতকাল বিকেলে ভোটগ্রহণ শেষ হওয়ার আগেই ভোটে কারচুপি ও অনিয়মের অভিযোগ তুলে ভোট বর্জন করেছিল ছাত্রলীগ ছাড়া বাকি সব প্যানেল। এসময় তারা পুনঃ তফসিলের দাবি জানায়।

একে “প্রহসনের নির্বাচন” উল্লেখ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস জুড়ে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে ভোট বর্জন করা প্রার্থী ও তাদের কর্মী-সমর্থকরা।

ক্যাম্পাসে বিপুল সংখ্যায় পুলিশ মোতায়েন করতে দেখা গেছে।

ক্লাস বর্জন
এদিকে নির্বাচনে অনিয়মের অভিযোগ তুলে পূর্বঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী আজ (মঙ্গলবার) থেকে ছাত্র ধর্মঘটের ডাক দিয়েছিল বিভিন্ন প্যানেল ও স্বতন্ত্র প্রার্থীরা।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে সম্মিলিতভাবে সংবাদ সম্মেলন করে প্রগতিশীল ছাত্রজোট, ছাত্র মৈত্রী, ছাত্র মুক্তি জোট, সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ, স্বতন্ত্র জোট ও স্বাধিকার স্বতন্ত্র পরিষদ সমাবেশ করে এই ঘোষণা দিয়েছিলেন।

মঙ্গলবার বেশিরভাগ বিভাগেই কোন ক্লাস হতে দেখা যায়নি, বলে আমাদের সংবাদদাতা।

পুরো বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে হাতেগোনা শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি রয়েছে বলে জানাচ্ছেন সংবাদদাতারা।

সদ্য ভিপি-নির্বাচিত নূরের বিরুদ্ধে মামলা
গতকাল ডাকসু নির্বাচনের সময় রোকেয়া হলের প্রভোস্ট জিনাত হুদাকে লান্থনা ও এবং তার অফিসে ভাঙচুরের অভিযোগে ভিপি-নির্বাচিত কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা নূর, ছাত্র ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক লিটনসহ সাতজনের বিরুদ্ধে শাহবাগ থানায় মামলা হয়েছে।

রোকেয়া হলের একজন ছাত্রী সোমবার রাতে মামলাটি করেন বলে জানিয়েছেন শাহবাগ থানার ওসি আবুল হাসান।

ওই মামলায় অজ্ঞাত পরিচয় আরো ৩০ থেকে ৪০জনকে আসামি করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

আরো যারা নির্বাচিত হয়েছেন
ডাকসুর সাধারণ সম্পাদক (জিএস) পদে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানি এবং সহ সাধারণ সম্পাদক (এজিএস) পদে নির্বাচিত হয়েছেন সংগঠনটির ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন।

নির্বাচিত অন্যদের মধ্যে রয়েছেন সাদ বিন কাদের চৌধুরী (স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক), মো:আরিফ ইবনে আলী (বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি), লিপি আক্তার (কমনরুম ও ক্যাফেটারিয়া), শাহরিমা তানজিন অর্নী ( আন্তর্জাতিক সম্পাদক), মাজহারুল কবির শয়ন (সাহিত্য সম্পাদক), আসিফ তালুকদার (সংস্কৃতি সম্পাদক), শাকিল আহমেদ তানভীর (ক্রীড়া সম্পাদক), শামস-ঈ-নোমান (ছাত্র পরিবহন) ও আখতার হোসেন (সমাজসেবা সম্পাদক)।

সদস্য পদে বিজয়ীরা হলেন – যোশীয় সাংমা চিবল, রকিবুল ইসলাম ঐতিহ্য, তানভীর হাসান সৈকত, তিলোত্তমা সিকদার, নিপু ইসলাম তন্বি, রাইসা নাসের, সাবরিনা ইতি, রাকিবুল হাসান রাকিব, নজরুল ইসলাম, মোছা ফরিদা পারভীন, মুহা. মাহমুদুল হাসান, সাইফুল ইসলাম রাসেল ও রফিকুল ইসলাম সবুজ।

Leave a Reply